কিওয়ার্ড কি এবং কিওয়ার্ড রিসার্চ কাকে বলে?

Rate this post

কিওয়ার্ড কি এবং কিওয়ার্ড রিসার্চ কাকে বলে এ নিয়ে আজ বিস্তারীত আলোচনা করব। আশাকরি আজের পর থেকে কিওয়ার্ড রিসার্চ নিয়ে কোনো প্রকার কনফিউশন থাকবেনা। আজকের এই কন্টেন্টটি আপনার জন্য। এছাড়াও আরও অনেক ক্ষেত্রে কিওয়ার্ড রিসার্চের ভুমিকা অপরিসীম।

কিওয়ার্ড রিসার্চ সম্পর্কে আপনার যথেষ্ট পরিমান জ্ঞান না থাকলে আশানুরূপ তেমন কোনো ভালো ফলাফল নিয়ে আসাটা অনেকটা কষ্টসাধ্য।

কিওয়ার্ড কি বা কাকে বলে?

আপনি যদি এখন গুগলে কিছু একটা লিখে সার্চ করার পর আমার এই কন্টেন্টে এসে থাকেন তাহলে আপনি গুগলে যা লিখেছিলেন বা যে শব্দটি অথবা বাক্যটি লিখে সার্চ দিয়েছিলেন সেটাই হলো (keyword) কিওয়ার্ড। একে আবার এসইও (SEO) এর ভাষায় (Search Query) সর্চ কোয়েরিও বলা হয়ে থাকে।

কিওয়ার্ড এর কাজ কি?

আমি বাহিরে কোথাও যাচ্ছি পিছন থেকে কেউ একজন ভদ্রলোক ডাক দিলো এই ছেলে? এখন তার ডাকে আমিও পিছন ফিরে তাকাতে পারি, অন্যরাও পিছন ফিরে তাকাতে পারে। যেহেতু ভদ্রলোক কাকে ডেকেছে সেটি নির্দিষ্ট্য নয়। যদি সে আমার নাম বলে ডাক দিতো তাহলে কেবলমাত্র আমিই পিছন ফিরে তাকাতাম।

এছাড়াও পড়ুন: ওয়ার্ডপ্রেস কি এবং ওয়ার্ডপ্রেস কেন এত জনপ্রিয়?

যদি সংক্ষিপ্ত পারিশ্বরে বলি কিওয়ার্ড এর কাজ কি? তাহলে এর উত্তর হবে কিওয়ার্ড আপনার কন্টেন্টকে অপটিমাইজ করে সঠিক সময়ে, সঠিক অডিয়েন্স অথবা মানুষের কাছে আপনার কন্টেন্টকে তুলে ধরে।

কিওয়ার্ড দ্বারা কিভাবে কন্টেন্ট অপটিমাইজ করতে হয় তা আমরা (On-page SEO) অনপেজ এসইও এর পার্টে জানবো।

কিওয়ার্ড কত প্রকার?

কিওয়ার্ড কত প্রকার বলাটা মুশকিল। দেখা যায় একই কিওয়ার্ডকে অনেকে অনেকভাবে বলছে। মূলত এর কোনো সঠিক উত্তর নেই। তবে বহুল ব্যবহৃত সমালোচোক কিছু কিওয়ার্ডের প্রকারভেদ নিয়ে আলোচনা করবো। এতোটুকু জানলেই মোটামুটি যথেষ্ট বলে আমি মনেকরি।

ইনফর্মেশনাল কিওয়ার্ড – Informational Keywords

কিভাবে, কখন, কোথায় (how, what, which, when etc.) ইত্যাদি কোনোকিছু জানার জন্য যা লিখে সার্চ দেওয়া হয় সাধারণত তাকে ইনফর্মেশনাল কিওয়ার্ড বালা হয়ে থাকে।

কমার্শিয়াল কিওয়ার্ড – Commercial Keywords

ধরুন আপনি কোনো একটা প্রোডাক্ট কেনার জন্য মনোস্থির করলেন। সেই প্রোডাক্ট সম্পর্কে অনলাইনে ভালো-মন্দ জানার চেষ্টা করছেন। যেমন: কোন প্রোডাক্টি আপনার জন্য বেস্ট হবে, প্রোডাক্টি দেখতে কেমন, এর কোনো খারাপ দিক আছে কিনা, এর ভালো দিকগুলো কি, প্রোডাক্টের রিভিউ ইত্যাদি দেখার জন্য যে কিওয়ার্ডগুলো ব্যবহার করা হয়ে থাকে তাকে কমার্শিয়াল কিওয়ার্ড বলা হয়।

ট্রানজেকশনাল কিওয়ার্ড – Transactional Keywords

প্রোডাক্টি সম্পর্কে বিস্তারিত জানা শেষ, এখন আপনি প্রোডাক্টি কেনার জন্য পাগল-পরা প্রেডাক্টি আপনার লাগবেই লাগবে। এসমস্থ কিওয়ার্ডগুলোকে ট্রানজেকশনাল কিওয়ার্ড বলা হয়। অনেকে আবার (Buying Keywords) বাইং কিওয়ার্ডও বলে থাকে।

নেভিগেশনাল কিওয়ার্ড – Navigational Keywords

কোনো ব্রান্ডের নাম অথবা ব্রান্ডেড কিওয়ার্ডগুলোকে নেভিগেশনাল কিওয়ার্ড বলা হয়ে থাকে। এসমস্থ কিওয়ার্ডগুলো মূলত গুগল এডস এ বেশি ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

ধরুন আমি Google Ads Service দেই কিন্তু আপনি Google Adwords এ লগইন করার জন্য গুগলে এসে সার্চ করলেন Google Adwords এক্ষেত্রে আপনার সামনে যদি আমার সার্ভিস পেজটি দেখায় অবশ্যই আপনি আমার সার্ভিস পেইজটিতে ভিজিট করবেননা কারণ এইমূহুর্তে আপনি গুগল এডওয়ার্ডে লগইন করতে চাচ্ছেন সার্ভিস কিনতে নয়।

 রিলেটেড কিওয়ার্ড অথবা এলএসআই কিওয়ার্ড – Related Keywords or LSI Keywords

আমরা গুগল সার্চবক্সে “LSI Keywords” লেখার পর সেখানে আমাদের প্রাইমারী কিওয়ার্ডের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ রেখে গুগল আরো অনেক কিওয়ার্ড আমাদের সামনে নিয়ে এসেছে।

এছাড়াও পড়ুন: ইনস্টাগ্রাম থেকে আয় করার ৬ টি উপায়

এইযে প্রধান কিওয়ার্ডের সাথে সামঞ্জস্য রেখে যে ভিন্নতা দেখতে পাচ্ছি তাকে রিলেটেড অথবা এলএসআই LSI (Latent Semantic Indexing) কিওয়াড বলা হয়ে থাকে।

 ব্রডম্যাচ কিওয়ার্ড – Broad Match Keywords

ধরুণ আমাদের মেইন কিওয়ার্ড অথবা প্রধান কিওয়ার্ড হলো “black shoes” এইযে “Black” এবং “Shoes” দুইটি শব্দ একটি বাক্যের মধ্যে একসঙ্গেও থাকতে পারে অথবা আলাদাভাবেও থাকতে পারে অর্থাৎ শব্দদুইটি বাক্যের মধ্যে থাকলেই হলো। এমন কিওয়ার্ডগুলোকে ব্রডম্যাচ বলা হয়ে থাকে।

ফ্রেজম্যাচ কিওয়ার্ড – Phrase Match Keywords

মেইন অথবা প্রাইমারী কিওয়ার্ডের আগে-পরে যেকোনো শব্দগুচ্ছো থাকতে পারে। Phrase Match Keywords কে Releted অথবা LSI Keywords এর সাথে তুলনা করা যেতে পারে।

এক্সাক্টম্যাচ কিওয়ার্ড – Exact Match Keywords

একটি পেইজ এবং পোস্টের টাইটেল অথবা (Heading) হেডিং এ প্রাইমারী অথবা প্রথান কিওয়র্ডের শব্দগুচ্ছোর বাহিরে আর কোনো শব্দগুচ্ছো থাকবে না প্রধান কিওয়ার্ড যা তাই থাকবে এমন কিওয়ার্ডকে (Exact Match Keywords) এক্সাক্টম্যাচ কিওয়ার্ড বলা হয়ে থাকে।

Broad Match, Phese Match, Exact Match, Navigational এসমস্থ কিওয়ার্ডগুলো সাধারনতো Google Ads এ বেশি ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

শর্ট-টেইল কিওয়ার্ড – Short-Tail Keywords

সাধারনতো দুই অথবা তিন শব্দগুচ্ছো অথবা তারও কম শব্দগুচ্ছোকে শর্ট-টেইল কিওয়ার্ড বলা হয়ে থাকে।

লং-টেইল কিওয়ার্ড – Long-Tail Keywords

তিন থেকে চার শব্দগুচ্ছো অথবা তারও বেশি শব্দগুচ্ছোকে লং-টেইল কিওয়ার্ড বলা হয়।

লোকেশনাল অথবা রিজনাল কিওয়ার্ড – Locational or Regional Keywords

যে কিওয়ার্ডগুলোর সঙ্গে কোনো জায়গা অথবা স্থানের নাম উল্ল্যেখ থাকবে সে সমস্থ কিওয়ার্ডগুলোকে লোকেশনাল অথবা রিজনাল কিওয়ার্ড বলা হয়।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কি?

আমরা জানি যে, আমরা আমাদের প্রয়োজনে অথবা অপ্রয়োজনে গুগলে, ইউটিউবে অথবা যেখানে কোনোকিছু লিখে সার্চ করা যায় এমন জায়গায় আমরা যে শব্দ বা বাক্য লিখে সার্চ দেই তাই হলো কিওয়ার্ড। আপনি যদি এই আর্টিকেলটি প্রথম থেকে পড়ে আসেন আশাকরি আপনার ইতেমধ্যে কিওয়ার্ড সম্পর্কে ধারণা হয়েছে।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কি এই সম্পর্কে বলতে গেলে ধরণ এই মূহুর্তে আপনি একটি স্মার্টফোন কিনতে চাচ্ছেন এবং আপনার বাজেট হলো ২০,০০০ হাজার টাকা থেকে ৩০,০০০ হাজার টাকা পযন্ত এবং এই বাজেটের মধ্যে ফোনটির ফিচার্স ও কোয়ালিটি সবদিক থেকে ভালো হতে হবে।

এছাড়াও পড়ুন: নতুন ইমেইল একাউন্ট তৈরী করার নিয়ম

আপনি গুগলে সার্চ দিলেন “best smart phone in Bangladesh” লিখে এবং প্রতিটি আর্টিকেল পড়ে দেখার পরও আপনার পছন্দ হলো না। আপনি আবার সার্চ দিলেন “best smart phone in bangladesh under 30000 taka” লিখে এবং প্রতিটি আর্টিকেল পড়ার পর ধরলাম আপনি “Samsung Galaxy A23” এই ফোনটি আপনি আপনার জন্য পছন্দ করে ফেললেন।

“Samsung Galaxy A23” এই ফোনটির ফিচার এবং কোয়ালিটি সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানার জন্য আপনি লাইভস্ট্রিমিং দেখতে ইউটিউবে চলে গেলেন সেখানে লিখে সার্চে দিলেন “Samsung Galaxy A23 review”

এইযে আপনি প্রথমে “best smart phone in Bangladesh” লিখে সার্চ করার পর তেমন কোনো সিদ্ধান্ত নিতে না পেরে তারপর আবার “best smart phone in bangladesh under 30000 taka” লিখে সার্চ করার পর আপনি “Samsung Galaxy A23” স্মার্টফোনটি আপনার জন্য পছন্দ করলেন। আবার আপনি সেই ফোন সম্পর্কে আরও ভালোভাবে জানতে ইউটিউবে “Samsung Galaxy A23 review” লিখে সার্চ করে ভিডিও দেখে নিলেন।

আমি একজন ব্লগার অথবা ইউটিউবার হিসাবে এই তিনটি কিওয়ার্ড খোজাখুঁজি করে বার করে আমার আর্টিকেল অথবা ইউটিউব ভিডিও টাইটেলে যদি না দিতাম তাহলে হয়তো আপনি আমার আর্টিকেল অথবা ভিডিওটি খুঁজে পেতেন না। এই খোজাখুঁজি করে কিওয়ার্ড বার হলো কিওয়ার্ড রিসার্চ করা।

অনেকগুলো কিওয়ার্ডের ভিতর থেকে এই তিনটি কিওয়ার্ডে আমার কন্টেন্ট বা ভিডিও এর জন্য পছন্দ করেছি এই পছন্দ করার নামই হলো কিওয়ার্ড সিলেকশন করা এবং এই কিওয়ার্ড তিনটি খুঁজে বার করে, পছন্দ করে কন্টেন্টে বা ভিডিও এর টাইটেলে ব্যবহার করার নামই হলো কিওয়ার্ড প্লেসমেন্ট করা। কিভাবে কিওয়ার্ড প্লেসমেন্ট করতে হয় আমরা অনপেজ এসইও তে শিখবো।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কেন এত গুরুত্বপূর্ণ?

একটি কলম বক্সে অনেকগুলো কলো রঙের কলম রাখা আছে সেই কলমগুলোর মাঝে একটি মাত্র সবুজ রঙের কলমও সেখানে রাখা হয়েছে। এখন বলুনতো সেই কালো রঙের কলমগুলো থেকে সবুজ রঙের কলমটি খুঁজে বের করতে আপনার কতমিনিট সময় লাগতে পারে?

এছাড়াও পড়ুন: ডিজিটাল মার্কেটিং কি? সম্পর্কিত একটি কমপ্লিট গাইডলাইন

যখন আপনি কিওয়ার্ড রিসার্চ করে আপনার কন্টেন্ট লিখবেন অথবা আপরার কন্টেন্টকে অপটিমাইজ করবেন তখন গুগল অথবা সার্চ ইঞ্জিনের বুঝতে সুবিধা হয় আপনার কন্টেন্টি কোন বিষয়ের উপর লেখা হয়েছে। যখন কেউ সেই বিষয়টি লিখে গুগলে সার্চ করবে তখন আপনার কন্টেন্টকে (SERP) সার্চ ইঞ্জিন রেজাল্ট পেজে দেখানোর সম্ভাবনা অনেকগুনে বেড়ে যায়।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়?

কিওয়ার্ড রিসার্চ অনেকে অনেক ভাবে করে থাকেন পেইড টুলস এবং ফ্রী টুলস ব্যবহার করে। ফ্রী টুলস ব্যবহার করে কিওয়ার্ড রিসার্চ করেতে পারলেও সেই কিওয়ার্ড নিয়ে কাজ করাটা অনেকটা কষ্টসাধ্য। কারণ দেখাগেলো আমরা এমন একটি কিওয়ার্ড সিলেকশন করলাম সেই কিওয়ার্ডের সার্চ ভলিয়ম অনেক ভালো কিন্তু কিওয়ার্ড ডিফিকাল্টি অনেক বেশি সেক্ষেত্রে সেই কিওয়ার্ডকে র্যা ঙ্ক করানোটা অনেক কঠিন হয়ে পরে। কিভাবে র্যা ঙ্ক করানো যায় সেই বিষয়ে আমরা অফপেজ এসইও তে শিখবো। ফ্রী টুলসগুলোর মধ্যে নিচের টুলন গুলো ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

  • keyword planner
  • Ahrefs
  • keywordtool.io

এরকম আরো অনেক ফ্রী টুলস আছে গুগলে খোজাখুঁজি করলেই পেয়ে যাবেন। কিওয়ার্ড রিসার্চ এর ক্ষেত্রে আমি ahrefs এবং semrush পেইড টুলস ব্যবহার করি। এখানে আপনি কিওয়ার্ডের সার্চ ভলিয়ম এবং কিওয়ার্ড ডিফিকাল্টি দেখতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনি কোন কিওয়ার্ডটি নিয়ে কাজ করেবেন সেটা সিদ্ধান্ত নিতে সহজ হয়ে যায়।

কিওয়ার্ড সার্চ ভলিয়ম কি?

“best smart phone in bangladesh” এই কিওয়ার্ডটা লিখে আমরা গুগলে এসে সার্চ করলাম এবং পরবর্তীতে আবার সেই একই কিওয়ার্ডটা লিখে গুগলে সার্চ করলাম তাহলে এখন আমরা কতবার সার্চ করলাম?
এইযে আমরা দুইবার সার্চ করলাম তাহলে এখানে সার্চ ভলিয়ম হলো দুই। সার্চ ভলিয়ম গণনা করা হয়ে থাকে কতবার সেই কিওয়ার্ডটা লিখে সার্চ করা হয়েছে তার উপর ভিত্তি করে, কতজন মানুষ সার্চ করেছে তার উপর ভিত্তি করে নয়।

উপসংহার

আশাকরি উপরোক্ত আর্টিকেলটি পড়ার মাধ্যমে কিওয়ার্ড কি, কিভাবে তা রিসার্চ করতে হয় ইত্যাদি সম্পর্কিত সকল ইনফর্মেশন জানতে পেরেছেন।

Leave a Comment